মানিকগঞ্জে আজম খান আপেলে উজ্জীবিত কয়েক হাজার নেতাকর্মী

মানিকগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন আগামী ১১ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া কাঙ্ক্ষিত সম্মেলনকে ঘিরে আওয়ামী লীগের সিনিয়র নেত্রীবৃন্দসহ অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের নেতা–কর্মীদের মাঝে এক আনন্দঘন পরিবেশ সবিরাজ করছে। জেলা শহরের বাসস্ট্যান্ড থেকে বেউথা, শহীদ রফিক সড়কসহ সাতটি উপজেলার বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ স্থানে দুটি পদে অংশগ্রহণকারীদের ছবিসংবলিত অর্ধশতাধিক গেট ও শত শত ব্যানার ফেস্টুনে ভরে গেছে।

আজ বুধবার সকাল থেকেই সাধারণ সম্পাদক পদপ্রার্থী বর্তমান কমিটির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আজহাজ্ব সুলতানুল আজম খান আপেল তার কর্মী সমর্থকদের নিয়ে জেলা শহরে এক বিশাল শো-ডাউন করেছেন। কয়েক হাজার নেতাকর্মী নিয়ে শহরের গুরুত্বপূর্ণ সড়কগুলো প্রদক্ষিণ করে এক বিশাল জনসভা করেছেন। জনসভায় জেলায় অঙ্গসংগঠনের একাধিক সিনিয়র নেতাকর্মীদের উপস্থিতি ছিল চোখের পড়ার মত। এমনকি কর্মীরা ছিলেন উজ্জিবিত।

সমাবেশে সুলতানুল আজম খান বলেন, স্বাধীনতার পর দীর্ঘ ২৫ বছর পরে ১৯৯৬ সনে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে সরকার গঠন করলেও মানিকগঞ্জের সংসদীয় আসন গুলোতে পরাজিত ই থেকে যায়। ব্যর্থতার এই গ্লানি কে সফলতায় রুপ দিতে সংগঠনের সিনিয়র নেতাদের সাথে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে মানিকগঞ্জে স্বাধীনতা বিরোধী চক্রকে প্রতিহত করার লড়াইয়ের সংগ্রাম অব্যাহত রেখে আমি কাজ করে যাচ্ছি। বিগত পৌর নির্বাচনে দল থেকে মনোনয়ন চেয়েছিলাম। দল মনোনয়ন না দিলেও দলের সিদ্ধান্তের বাহিরে যাইনি কখনও।  আশা করি আসন্ন সম্মেলনে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বঙ্গকন্যা শেখ হাসিনা আমাকে মূল্যায়ন করবেন।

উল্লেখ্য, ১৯৭৮-৮০ সাল পযন্ত মানিকগঞ্জ পৌরসভা ছাত্রলীগের সভাপতি, ১৯৮০-৮৬ সাল পর্যন্ত জেলা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও ১৯৮৭-৯১ সাল পর্যন্ত জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি, ১৯৯০ এর স্বৈরাচার এরশাদ বিরোধী ছাত্রজনতার আন্দোলনে সর্ব সম্মতিক্রমে মানিকগঞ্জ জেলা ছাত্র সংগ্রাম পরিষদের সভাপতি, ১৯৯৪-২০০৩ সাল পর্যন্ত জেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক, ২০০৪-২০১৫ সাল পর্যন্ত সময় কালে জেলা আওয়ামী লীগের যুব ও ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক এবং সর্বশেষ ২০১৫ সাল থেকে বর্তমান পর্যন্ত মানিকগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করে আসছেন সুলতানুল আজম খান আপেল।

আসন্ন সম্মেলনের অংশগ্রহণকারী সভাপতি পদে প্রার্থীরা হলেন গত সম্মেলনে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বী বিজয়ী জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান গোলাম মহীউদ্দিন, সহসভাপতি ও সাটুরিয়া উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুল মজিদ।

এছাড়া সম্মেলনের সাধারণ সম্পাদক পদে প্রার্থীরা হলেন, জেলা আওয়ামী লীগের বর্তমান যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও ডায়াবেটিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক সুলতানুল আজম খান আপেল, বর্তমান সাধারণ সম্পাদক ও জেলা জজ কোর্টের পিপি অ্যাডভোকেট আব্দুস সালাম, সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক পৌরসভার মেয়র গাজি কামরুল হুদা সেলিম, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বাদরুল ইসলাম খান বাবলু, যুগ্ম সম্পাদক কাজী এনায়েত হোসেন টিপু, তায়েবুর রহমান টিপু, সাংগঠনিক সম্পাদক সুদেব কুমার সাহা এবং শিল্প ও বাণিজ্য বিষয়ক সম্পাদক তাবারাকুল তোসাদ্দেক হোসেন খান টিটু প্রমুখ।

Check Also

বাংলাদেশকে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দেয় ভারত: প্রধানমন্ত্রী

প্রতিবেশীদের কেন্দ্র করে ভারতের পলিসি আছে জানিয়ে ঢাকায় নিযুক্ত দেশটির নবনিযুক্ত হাইকমিশনার প্রণয় ভার্মা বলেছেন, …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *